সর্বশেষ

ঝিনাইদহ

শরতের শুভ্রতা ভেদ করে কুয়াশায় আচ্ছাদিত

শরতের শুভ্রতা ভেদ করে কুয়াশায় আচ্ছাদিত

ঝিনাইদহ : শুভ্রতার প্রতীক ভদ্র ও আশ্বিন দুই মাস শরৎকাল, নেই বর্ষার বিষন্নতা শুধু স্নিগ্ধতা প্রকৃতি শান্ত নির্মল। সাদা মেঘের ভেলায় চড়ে শুভ্র কাশের আঁচল উড়িয়ে, শরৎ আসে প্রকৃতি হাসে শেফালিফুলের মালা দুলিয়ে। ঝিলমিলি রোদ শান্ত শরৎ স্নিগ্ধ রূপে প্রশান্তি আনে, মন মাতোয়ারা ধবধবে রাতের স্নিগ্ধ জ্যোৎস্নার টানে। যুগে যুগে কবি সাহিত্যিকরা শরতের শুভ্রতা ফুটিয়ে তুলেছেন কত গান আর কবিতা দিয়ে। শারদ সম্ভর নিয়ে রচিত কেবলই শরতের বন্দনা। কিন্ত এই মাসে কুয়াশার কথা কস্মিনকালেও ভাবেননি মানুষ। হঠাৎ করে কুয়াশার আর্বিভাবে মানুষ হকচকিয়ে যান। ঋতু পরিক্রমায় এখন চলছে শরৎকাল। ভোরের সকালটা ঝকঝকে থাকার কথা। শরৎকালে আবীর রাঙ্গা ভোরের প্রত্যাশায় থাকে মানুষ। অথচ ঝিনাইদহের শহরসহ গ্রামাঞ্চলে মঙ্গলবার সকালে হঠাৎ করেই দেখা দেয় কুয়াশা। চারিদিকে আচ্ছাদন পড়ে কুয়াশার জালে। ছন্দ পতন ঘটে জীবন যাত্রার। অনেকে বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে হঠাৎ করেই কুশায়াচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে শহর-গ্রাম। মঙ্গলবার ভোর রাত থেকে শুরু হয়ে সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত কুয়াশায় ঢাকা ছিল ঝিনাইদহ। এ সময় যানবাহন গুলোকে হেডলাইট জ্বালিয়ে চলতে দেখা গেছে। অনেকে কুয়াশাকে শীতের আগমনী বার্তা বলে মনে করছেন। অসময়ে ঘন কুয়াশার কারণে ধান, সবজিসহ ফসলের ক্ষতি হবে বলে জানিয়েছে কৃষবিদরা। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চুটলিয়া গ্রামের কৃষক নজির উদ্দিন বলেন, হঠাৎ করে এমন কুয়াশা ধানের জন্য ক্ষতিকারক। কুয়াশার কারণে ধানের থোড় নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এদিকে সুর্যের মুখ দেখা না যাওয়ায় সড়ক-মহাসড়কে দুর্ঘটনা এড়াতে যানবাহনগুলোতে হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে।

মন্তব্য করুন