সর্বশেষ

আদিবাসী এক প্রতিবন্ধী

ধর্ষণের আসামি প্রকাশ্যে দেখা গেলেও খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ

ধর্ষণের আসামি প্রকাশ্যে দেখা গেলেও খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে আদিবাসী এক প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণের মামলার আসামিকে দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবী জানিয়েছেন তার ভাই বিশ্বনাথ মার্ডি। বুধবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলন এ দাবি জানানো হয়।
ধর্ষণ মামলার পর শুধুমাত্র একদিন পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও পরবর্তী প্রায় ২ মাসে অজ্ঞাত কারণে নবাবগঞ্জ পুলিশ বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করা হয়।
বক্তব্যে অভিযোগ করা হয়েছে, গত ২০ আগস্ট দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার দামুদারপুর গ্রামের এক আম বাগানে এক প্রতিবন্ধী নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে একই গ্রামের মৃত আব্দুল্লাহ‘র পুত্র মো. নবানু (৫৫)। এসময় ধর্ষণের শিকার নারীর চিৎকারে তার ভাই ও আশেপাশের লোকজন ছুটে এলে ধর্ষণকারী নবানু পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ব্যাপরে ধর্ষিতার আত্মীয়স্বজনেরা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের নিকট বিচার চাইলে ঘটনার তদন্ত করে চেয়ারম্যান সত্যতা সাপেক্ষে মামলা করার পরামর্শ দেন। চেয়ারম্যানের মতামতের ভিক্তিতে গত ২৮ আগস্ট দামুদারপুর গ্রামের নবানুকে আসামি করে নবাবগঞ্জ থানায় মামলা করা হয়। মামলা নং ৩৫২/১৮ জিআর।
ধর্ষণ মামলার বাদী বিশ্বনাথ মার্ডি সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশের কাছে মামলার ব্যাপারে জানতে চাইলে পুলিশের পক্ষে বলা হচ্ছে, আসামি গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। অথচ আসামি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তা দেখতে পাচ্ছে না। আসামির লোকজন মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টাসহ বাদীকে মামলা প্রত্যাহারের জন্যে নানাভাবে চাপ দিচ্ছে। তারা বলেন, অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল এবং অসহায় বলেই কেউ এগিয়ে আসছে না। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্বনাথ মার্ডি, সুনীল মূর্মূ, মাইকেল র্মূর্মূ ও উকিল হেমব্রম। সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যটি বিশ্বনাথ মার্ডির পক্ষে পাঠ করে শোনান লুইস সরেন।

মন্তব্য করুন